নেভারবল: ওপেনসোর্স, ক্রস-প্ল্যাটফর্ম গেম

নেভারবল একটি জনপ্রিয় ওপেনসোর্স এবং ক্রস-প্ল্যাটফর্ম থ্রিডি আর্কেড গেম। এই গেমের লক্ষ্য হল একটি নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে একটি পিং-পং বলকে বিভিন্ন বাধা-বিপত্তি পেরিয়ে নির্দিষ্ট লক্ষে পৌঁছে দেয়া। এতে খেলোয়াড় সরাসরি বলটি নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন না, মাউস বা গেমপ্যাডের সাহায্যে ফ্লোরটিকে উপরে-নীচে-ডানে-বামে ঘুরিয়ে বলকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। শুরুতে কিছুটা কঠিন মনে হলেও গেমটিতে অভ্যস্থ হয়ে যেতে খুব বেশি সময় লাগবে না, আর একবার অভ্যস্থ হয়ে গেলে গেমটি সবার ভালো লাগবে বলেই আশা করা যায়।

গেমটির স্ক্রিণশট:
ছবি

প্রাপ্তিস্থান: নেভারবল গেমটি উবুন্টু, ফেডোরা, মিন্টসহ সকল জনপ্রিয় লিনাক্স ডিস্ট্রিবিউশনের রিপোজিটরিতে ডিফল্টভাবেই দেয়া আছে। উবুন্টু এবং মিন্টে sudo apt-get install neverball কমান্ড দিয়ে এবং ফেডোরায় রুটমোডে yum install neverball কমান্ডটি প্রয়োগ করে গেমটি ইনস্টল করা যাবে। বিভিন্ন লিনাক্স ডিস্ট্রোতে প্রয়োজনীয় ডিপেন্ডেন্সি সহ গেমটির আকার প্রায় ২৬ মেগাবাইট।
আর উইন্ডোজ, ম্যাক এবং অন্যান্য অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহারকারীরা এই সাইট থেকে নেভারবল গেমটি নামিয়ে নিতে পারবেন। এছাড়াও উইন্ডোজের জন্য ওপেনসোর্স সফটওয়্যার কালেকশন ওপেনডিস্ক থেকেও গেমটি ইনস্টল করা যাবে। উইন্ডোজের .exe ইনস্টলেশনের ফাইলের আকার ৩৫.৮১ মেগাবাইট এবং ম্যাকওএসএক্স এর .dmg ফাইলের আকার ৫২.০৪ মেগাবাইট।

লিনাক্স মিন্ট বাংলাদেশের যাত্রা শুরু হল

নতুন বছরের সূচনালগ্নে যাত্রা শুরু করছে লিনাক্স মিন্ট বাংলাদেশ কমিউনিটি। এই উপলক্ষে আজ জানুয়ারি ০১, ২০১০ লিনাক্স মিন্ট বাংলাদেশের অফিসিয়াল সাইট সবার জন্য উন্মুক্ত হচ্ছে।

আপনারা যারা নিয়মিত লিনাক্স ব্যবহারকারী তারা নিশ্চয়ই ইতিমধ্যে লিনাক্স মিন্ট সম্পর্কে জেনে গিয়েছেন। তবে যারা এখনও এর সাথে পরিচিত নন তাদের জন্য লিনাক্স মিন্টের সংক্ষিপ্ত পরিচয় তুলে ধরছিঃ

লিনাক্স মিন্ট হচ্ছে একটি অত্যাধুনিক ডেস্কটপ অপারেটিং সিস্টেম। এটি জনপ্রিয় লিনাক্স ভিত্তিক অপারেটিং সিস্টেম উবুন্টু এবং ডেবিয়ানের ওপর ভিত্তি করে তৈরি, তবে এর ইন্টারফেস মার্জিত, উন্নততর এবং ব্যবহারবান্ধব। এতে বিভিন্ন মাল্টিমিডিয়া কোডেক ডিফল্টভাবেই দেয়া আছে, ফলে ইনস্টলেশনের পরেই একটি পূর্ণ ব্যবহারযোগ্য ডেস্কটপ পরিবেশ পাওয়া যাবে।

মুক্ত অপারেটিং সিস্টেম লিনাক্সের জগতে লিনাক্স মিন্ট যাত্রা শুরু করেছে ২০০৬ সালে। শুরু থেকেই এটি লিনাক্স প্রেমিদের অন্তরে স্থান করে নিতে সক্ষম হয়েছে এর সৌন্দর্য্য এবং ব্যবহারবান্ধব পরিবেশের কারণে। প্রতিষ্ঠার কয়েক বছরের মধ্যেই লিনাক্স মিন্ট আজ বিশ্বের সর্বাধিক ব্যবহৃত অপারেটিং সিস্টেমের তালিকায় চতুর্থ স্থান অধিকার করে নিয়েছে।

লিনাক্স মিন্টের এই সাফল্যের পেছনে সবচেয়ে বড় অবদান এর সাধারণ ব্যবহারকারীদের, যারা তাদের ভালবাসা, সাধনা এবং মেধার দ্বারা লিনাক্স মিন্টের মূল ডেভেলপারদের কর্মপ্রেরণা যুগিয়েছেন। এমনকি নিজেরাও লিনাক্স মিন্টের সার্বিক গঠন এবং উন্নয়নপ্রক্রিয়ায় সহায়তা করে আসছেন। ওপেনসোর্স এবং লিনাক্স জগতের অন্যান্য সফটওয়্যারের মত আমরাও উন্মুক্ত চিন্তা-চেতনা ও সফটওয়্যার স্বাধীনতায় বিশ্বাসী এবং আমরা আরও বিশ্বাস করি, আপামর জনসাধারণের মধ্যেই নিহিত রয়েছে ওপেনসোর্স বিপ্লবের মূল চালিকাশক্তি। কাজেই লিনাক্স তথা ওপেনসোর্স যেন সাধারণ মানুষের দুয়ারে দুয়ারে পৌঁছে যায় এটাই আমাদের মূল প্রচেষ্টা এবং এই লক্ষ্য অর্জনে আমরা সকলেই একতাবদ্ধ।

লিনাক্স মিন্ট বাংলাদেশ কমিউনিটির নেপথ্যের কিছু কথাঃ আমাদের মাতৃভূমি বাংলাদেশের রয়েছে অন্যায় ও অবিচারের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে ওঠার গৌরোবোজ্জ্বল ইতিহাস, যুগে যুগে বিভিন্ন সময়ে বাঙালীরা লড়েছে অত্যাচারি শোষকের বিরুদ্ধে আর তারই ফলস্বরূপ আজ আমরা নিজেদের একটি স্বাধীন এবং সার্বভৌম রাষ্ট্র হিসাবে বিশ্বের বুকে গর্বের সাথে পরিচয় দিতে পারছি। কিন্তু কম্পিউটার সফটওয়্যারের ক্ষেত্রে আমরা এখনও পরাধীনতার বেড়াজালে আবদ্ধ। সামাজিক অজ্ঞতা ও অবহেলার কারণে আমরা সফটওয়্যার পাইরেসিকে সবসময় খাটো করে দেখে আসছি। যেখানে বহির্বিশ্বের প্রায় সকল উন্নত এবং উন্নয়নশীল দেশসমূহ আজ পাইরেসির বিরুদ্ধে সোচ্চার।

দেশ ও জাতিকে পাইরেসির কলুষতা হতে মুক্তকরণের সবচেয়ে সেরা হাতিয়ার হচ্ছে ওপেনসোর্স, তাই ওপেনসোর্স সফটওয়্যারের প্রচার ও প্রসার আমাদের দেশে অত্যন্ত জরুরি। ওপেনসোর্স আন্দোলনে বাংলাদেশের লিনাক্স এবং ওপেনসোর্স সংগঠনসমূহের সহযাত্রী হয়েই আজ যাত্রা শুরু করছে লিনাক্স মিন্ট বাংলাদেশ কমিউনিটি। বাংলাদেশের সকল লিনাক্স এবং ওপেনসোর্স ব্যবহারকারী, স্বেচ্ছাসেবক, ডেভলপার, সর্বোপরি লিনাক্স এবং ওপেনসোর্সে উৎসাহী ব্যক্তিবর্গ আমাদের সাথে অংশ নেয়ার জন্য সাদরে আমন্ত্রিত। আমরা লিনাক্স মিন্ট ব্যবহারকারী, স্বেচ্ছাসেবক ও সফটওয়্যার নির্মাতারা এখানে এক হয়ে নিজেদের সুবিধা-অসুবিধা, চাহিদা ও সমস্যা সমাধান নিয়ে মুক্ত আলোচনা করব, যার ফলে সৃষ্টি হবে নিত্যনতুন ধারণা, পারস্পরিক যোগাযোগ এবং আমাদের প্রিয় বাংলাদেশে আক্ষরিক অর্থেই শুরু হবে “ওপেনসোর্স বিপ্লব”।

নিজেদের ফোরামে আমাদের জন্য একটি নতুন সাব-ফোরাম বানিয়ে আমাদের অগ্রগতিকে ত্বরান্বিত করেছে প্রজন্ম ফোরাম , আমাদের কমিউনিটি সাইটটি ডিজাইন এবং ডেভেলপ করেছে পিকিউ সফটস এবং আমাদের ডেমেইন এবং হোস্টিং স্পন্সর করেছে জেনেক্স ওয়েব সলিউশন্স। এছাড়াও বন্ধু হিসেবে সব সময় আমাদের পাশে থাকবে রেডিও গুনগুন। তাদের প্রতি আমরা আন্তরিকভাবে কৃতজ্ঞ।

বিনীত
লিনাক্স মিন্ট বাংলাদেশ দল